হত্যার বিচার চাওয়ায় ব্যবসায়ীকে মারধর করেছ গ্যাং লিডারের ভাই - adsangbad.com

সর্বশেষ

Thursday, February 11, 2021

হত্যার বিচার চাওয়ায় ব্যবসায়ীকে মারধর করেছ গ্যাং লিডারের ভাই

 


সাভার প্রতিনিধি : সাভারে আলোচিত কিশোর গ্যাং কতৃক নীলা রায় নামে দশম শ্রেনী পড়ুয়া এক স্কুল ছাত্রীকে হত্যার ঘটনায় বিচার চেয়ে মানববন্ধনে অংশ নেয়ায় প্রান্ত সাহা (২৬) নামে এক ব্যবসায়ীকে মারধর ও প্রাণ নাশের হুমকি দেয়ার অভিযোগ উঠেছে কিশোর গ্যাং লিডার শাকিব হোসেনের বড় ভাই শাকিল হোসেনের বিরুদ্ধে। বিষয়টি জানিয়ে ভুক্তভোগী ওই ব্যবসায়ীর পরিবারের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার বিকেলে সাভার মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
মারধরের শিকার ওই ব্যবসায়ীর নাম প্রান্ত সাহা সাভার পৌর এলাকার উত্তরপাড়া মহল্লার শিশির সাহার ছেলে। অন্যদিকে অভিযুক্ত শাকিল হোসেন সাভার পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম শিরুর বড় ছেলে ও নিলা রায় হত্যাকান্ডের ঘটনায় গ্রেপ্তারকৃত শাকিব হোসেনের বড় ভাই।
লিখিত অভিযোগ থেকে জানা যায়, ব্যবসায়ী প্রান্ত সাহা বৃহস্পতিবার বিকেলে দরকারী কাজে পৌর এলাকার কাজী মোকমাপাড়া জামে মসজিদের সামনে অবস্থান করছিলো। এসময় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এলাকার বখাটে ও কিশোর গ্যাং সদস্যদের ইন্ধনদাতা শাকিল হোসেনসহ অজ্ঞাত পরিচয় ২/৩ জন যুবক ওই ব্যবসায়ীর উপর অতর্কিত হামলা হামলা চালিয়ে এলোপাথারি মারধর করতে থাকে। একপর্যায়ে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে পরবর্তীতে আবার এই এলাকায় পাইলে প্রানে শেষ করে দেয়ার হুমকি দিয়ে চলে যায়।
মারধরের শিকার প্রান্ত সাহা বলেন, সাভারের আলোচিত নীলা রায় হত্যাকান্ডের ঘটনায় আমি বিচার চেয়ে মানববন্ধনে নেয়ায় কিশোর গ্যাং লিডার ও নিলা হত্যা মামলায় গ্রেপ্তারকৃত শাকিব হোসেনের বড় ভাই আমাকে মারধর ও হত্যার চেষ্টা করেছে। শাকিল এলাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। এমন কোন অপরাধ নেই যা সে ও তার ভাই করেনা। তাই তাদের অত্যাচারে অতিষ্ট এলাকাবাসী ভয়ে তাদের বিরুদ্ধে কথা বলতে সাহস পায়না। ২০১৭ সালে একজন গানের শিক্ষককে গুলি ও কুপিয়ে হত্যা করে সন্ত্রাসী শাকিল ও তার ভাই কিশোর গ্যাং লিডার শাকিব।   
মারধরের বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত শাকিল হোসেন বলেন, প্রান্ত সাহাকে কোন মারধর করা হয়নি। তাকে শুধু ভয়-ভিতী দেখিয়ে এলাকা থেকে চলে যেতে বলেছি। মারধরের অভিযোগটি মিথ্যা এবং বানোয়াট। 
এব্যাপারে লিখিত অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা সাভার মডেল থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মোজাফ্ফর হোসেন বলেন, লিখিত অভিযোগটি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
উল্লেখ্য, গত ২০ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় হাসপাতাল থেকে ফেরার পথে নীলা রায় নামে এক স্কুল শিক্ষার্থীকে তার ভাইয়ের কাছে থেকে কৌশলে ডেকে নিয়ে ছুরিকাঘাতে হত্যা করে কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা। হত্যাকান্ডের ঘটনায় প্রধান আসামি মিজানুর রহমান, তার বাবা-মা, সেলিম পালোয়ান ও কিশোর গ্যাং লিডার শাকিবসহ পাঁচ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here

Pages