আশুলিয়া গলায় ফাঁস দিয়ে তরুনীর আত্মহত্যা - adsangbad.com

সর্বশেষ

Friday, November 27, 2020

আশুলিয়া গলায় ফাঁস দিয়ে তরুনীর আত্মহত্যা

ইব্রাহিম খলিলুল্লাহ, আশুলিয়া : আশুলিয়া ভাড়া বাসার নিজ কক্ষের দরজা আটকে শিমু আক্তার নামে এক তরুনী গলায় ফাঁস দিয়ে ‘আত্মহত্যা’ করেছে বলে জানিয়েছে নিহতের পরিবার ও পুলিশ।

শুক্রবার বিকেল ৩টার দিকে আশুলিয়ার পূর্ব ডেন্ডাবর ঈদগাহ মাঠ সংলগ্ন ভাড়া বাসা থেকে ওই তরুনীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত শিমু আক্তার শেরপুর জেলার সদর থানার বাকারকান্দা গ্রামের আজিজুল হকের মেয়ে।

নিহতের বাবা আজিজুল হক বলেন, তিন মেয়ে স্ত্রীকে নিয়ে পূর্ব ডেন্ডাবর এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকেন তিনি। শিমু তার মেজ মেয়ে। স্ত্রী ও বড় মেয়ে গার্মেন্টকর্মী। আর তিনি একজন চা দোকানী। মেজ মেয়ে শিমু আগে পাশের এলাকায় একটি ছোট কারখানায় কাজ করতো। কিন্তু সময় মতো বেতন না পাওয়ায় চাকরি ছেড়ে দেয় সে। তবে ১ ডিসেম্বর থেকে আরেকটি গার্মেন্টে চাকরিতে যোগদান করার কথা ছিল।

তিনি আরো বলেন, শুক্রবার ছুটির দিন হওয়ায় আজ সকালে তার স্ত্রী বাজারে যায়। আর বড় মেয়ে বাইরে বেড়াতে গিয়েছিল। সব ছোট মেয়ে পাশের ঘরে ঘুমাচ্ছিল। সকালে শিমুকে তার ঘরে টিভি দেখতে দেখে তিনিও বাইরে চলে যান। পরে ৯টার দিকে এসে শিমুর ঘরের দরজা ভেতর থেকে বন্ধ পান তারা। এসময় অনেক ডাকাডাকি করলেও শিমু সাঁড়া দিচ্ছিলো না। পরে জানালার ফাঁক দিয়ে শিমুকে ফ্যানের সাথে ঝুলতে দেখে দরজা ভেঙ্গে ফেলা হয়। কিন্তু ততক্ষণে শিমুকে মৃত অবস্থায় পান তারা। খবর পেয়ে দুপুরে পুলিশ এসে শিমুর লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

শিমু মানুষিক ভাবে অসুস্থ ছিল বলে তিনি জানালেও আত্মহত্যার কারণ জানাতে পারেননি।

আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আল মামুন জানান, ওই তরুনীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। প্রাথমিক ভাবে ওই তরুনী আত্মহত্যা করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তার পরিবার বিনা ময়নাতদন্তে লাশ পেতে তাকে অনুরোধ করেছেন। তবে মৃত্যুর সঠিক কারণ নিশ্চিত হওয়ার জন্য ময়নাতদন্ত প্রয়োজন। থানার ওসি স্যারকে বিষয়টি অবগত করা হয়েছে। পরবর্তীতে এ বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here

Pages