মানুষের জন্য রাজনীতি করি,বিপদে আপদে তাদের পাশেই থাকতে চাই : হাজী মোশারফ - adsangbad.com

সর্বশেষ


Wednesday, September 9, 2020

মানুষের জন্য রাজনীতি করি,বিপদে আপদে তাদের পাশেই থাকতে চাই : হাজী মোশারফ




আশুলিয়া প্রতিনিধি : সারা দেশের মানুষ তাকে চেনে ক্রিকেটের অন্ধভক্ত মোশারফ হিসেবে। ক্রিকেটের প্রতি মায়াথেকে দেশের মাঠের গন্ডি পেরিয়ে  বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের ভক্ত হয়ে নিজ খরচে বিদেশের মাটিতে পা রেখে দর্শক গ্যালারিতে বসে চার ছক্কার সময় আনন্দে উৎবেলিত হয়েছেন আবার বাংলাদেশের খেলোয়ারদের আউটের দৃশ্য দেখে অঝোর ধারায় কেঁদেছেন।

দৃশ্য গুলো দেখেছে  টিভি সেটের সামনে থাকা গোটা বিশ্ববাসী। অনেক-কে বলতে শুনি খেলাধুলা পাগল মানুষের মন নাকি নরম আর কোমল হয়।
সত্যিই তাই খেলাধুলা পাগল এই মানুষটি সারা বিশ্বের ন্যায় বাংলাদেশে মাহামারি করোনা ভাইরাসের সময় লগডাউনে সতর্কতার দরুণ বাসায় অবস্থান নেয়া কর্মহীন দতদরিদ্র অসহায় দুস্থ প্রতিবন্ধী ও কাউকে বলতে না পারা নিম্ন, মধ্যবিত্ত মানুষের সাহায্য এগিয়ে এসে মানবিক আর কোমল হৃদয়ের পরিচয় দিয়েছেন ।

তার লক্ষ ছিল মানুষ গুলোকে একদিন মাছ মাংস খাইয়ে নয় অন্তত মাহামারি এইদিন গুলোতে ডাল ভাত খেয়ে বেচেঁ থাকার ব্যবস্থা করতে সহায়তা করা।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে লক ডাউনের কারণে ঘরবন্দী মানুষের সহয়তায় গত ২৮শে মার্চ থেকে লগডাউন প্রত্যাহারের আগ পর্যন্ত খাদ্য সহয়তা, শিশুদের দুগ্ধ সহয়তা, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জনসচেতনতা মূলক কার্যক্রম এছাড়াও আশুলিয়া ইউনিয়ন ৩ নংও ৪ নং ওয়াডে দোসাইদ এলাকার প্রায় ৩৫টি মসজিদের ৭০ জন ইমাম, মুয়াজ্জিন ও খাদেমকে উপহার হিসেবে নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী তুলে দেন। 

সেদিন গুলোতে নিজের বসবাসরত এলাকা দোসাইদ সহ আশুলিয়া ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডে নিজস্ব উদ্যোগে ঘরবন্দী মানুষগুলোর পাশে দাড়িয়ে ছিলেন নিয়মিত চাল ডাল তেল লবন আলু পেয়াজ, কাচা সবজি,ডিম দুধ ও রান্নাকৃত খাবারসহ নিত্য প্রয়োজনীয় সকল পণ্যসহ শিশুদের জন্য দুগ্ধ সরবরাহ করছেন প্রতিদিন। ঈদুল ফিতর আর ঈদুল আযহাতেও অসহায় মানুষের পাশে ঈদ উপহার দিয়ে বাড়িয়েছেন সহয়তার হাত ।

 লগডাউন চলাকালে নিজ উদ্যোগে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌছেন তিনি।
এছাড়াও ধর্মভীরু মানুষটি এলাকার মাদ্রাসা গুলোতে থাকা এতিম অনাথদের নিয়মিত খাদ্য সহয়তা দিয়ে যাচ্ছেন।আর এ কাজে তার সহযোগী তার সহধর্মিণী  নিজের ব্যাংকে গচ্ছিত আমানত ৮০হাজার টাকা এই মাহামারির করোনা প্রকোপের সময় গরীব দুখিদর মাঝে বিলয়ে দিতে দান করেন। 


কিছু পেতে নয় সামাজিক দায়বদ্ধতা ও মহান সৃষ্টিকর্তার সান্নিধ্্য লাভেই তার এমন মহতি কর্মকাণ্ড। অনেক আগ থেকেই এলাকার মসজিদ মাদ্রাসার উন্নয়নে সংপৃক্ততা ও যুবসমাজ কে নেশা থেকে দূরে রাখতে খেলাধুলার প্রতি আগ্রহী করে গড়ে তুলতে তার যথেষ্ট ভূমিকা রয়েছে ।  নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আয়ের একটি অংশ নিয়মিত সমাজসেবার পাশাপশি অসহায় দরিদ্র মানুষের কল্যাণে ব্যয় করছেন । 
তার নানা মহতী কর্মকাণ্ড নিয়ে ইতিমধ্যে দেশের জাতীয় গণমাধ্যম সমুহে বেশ কয়েকটি প্রতিবেদন প্রচারিত হয়েছে। 
এত কিছুর বাইরেও আওয়ামী যুবলীগের রাজনীতির রয়েছে তার গভীর সমপৃক্ততা ।

যুবলীগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক শেখ ফজলে শামস পরশ এবং সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিলের আহবাণে ও আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহ্বায়ক কবির হোসেন সরকার ও যুগ্ন আহবাক মইনুল ইসলাম ভূঁইয়ার দিকনির্দেশনায় ক্ষুধা দরিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গঠনে ও বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পুরণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আস্থাভাজন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান এমপির  উন্নয়ন মূলক কর্মকাণ্ডের সহযোগী হয়ে এগিয়ে চলছেন আশুলিয়া ইউনিয়নের যুগ্ন-আহবায়ক ক্লিন ইমেজের রাজনৈতিক নেতা হাজী মোশারফ হোসেন খান। 

রাজনীতির মাঠে তার রয়েছে অবাধ বিচরণ । নিজের সততা প্রজ্ঞা দিয়ে অর্জন করেছেন দলীয় নেতার্কর্মীদের আস্থা । 
কিন্তু সম্প্রতি হাজী মোশাররফ খান ও পরিবারের সদস্যদের  বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত আখ্যা দিয়ে  হেয় প্রতিপন্ন করার নিরন্তণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে একটি কুচক্রী মহল ।
এ বিষয়ে  রবিবার( ০৬ ই সেপ্টেম্বর) বিকালে আশুলিয়ার  দোসাইদ স্কুল মাঠে সংবাদ সম্মেলন করেন হাজী মোশাররফ খান। তিনি ও তার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে মিথ্যা অপপ্রচার চালানো হোতাদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। তিনি আরো জানান, এই বিষয়ে আশুলিয়া থানায় একটি লিখিত সাধারণ ডায়েরী দায়ের করেন।

এ প্রসঙ্গে হাজী মোশারফ হোসেন জানান,দীর্ঘদিন আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে যুক্ত আছি ।বিগত দিনে দলের প্রতিটি আন্দোলন সংগ্রামে পাশে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছি । প্রতিটি দলীয় অনুষ্ঠান সুচারুভাবে পালন করার চেষ্টা করি । কিন্তু অতি সম্প্রতি আমার পরিবার কে নিয়ে কিছু ব্যক্তি বিশেষ মিথ্যাচার করে যাচ্ছে  যা মোটেই কাম্য নয় । আমি বিস্বাসকরি যে ব্যাক্তি অপরের নিন্দা করে এবং অপরকে অপমান করে তারা একদিন কষ্টদায়ক পরিনতির স্বীকার হবে । মিথ্যা কোন দিন সত্যকে দাবিয়ে রাখতে পারে না । সত্য একদিন প্রকাশ পাবেই ।
যে কোন দলীয় সিন্ধান্ত আগেও মেনে নিয়েছি এখনো মেনে নিয়েই রাজনীতির মাঠে সচল থাকতে চাই।  
তিনি আরও বলেন, আমার কোন চাওয়া পাওয়া নেই ।আমি মানুষের জন্য রাজনীতি করি তাদের বিপদের আপদে পাশে থাকতে পারলেই আমি তৃপ্ত ।
আমি যদি কারো ভালো করে থাকি তবে মহান আল্লাহতালা নিশ্চয়ই আমার ভাল করবেন।
যুবলীগের নেতাকর্মীদের নামে মিথ্যাচারের ব্যপারে আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহ্বায়ক কবির হোসেন সরকার মুঠোফোনে জানান, আমাদের যুবলীগে বিতর্কিতদের স্থান নেই, আমরা সরেজমিনে তদন্ত করে দেখেছি কিছু হলুদ সাংবাদিক আমাদের যুবলীগের নেতাকর্মীদের নামে প্রতিনিয়ত মিথ্যাচার করে যাচ্ছে, আমরা এ বিষয়ে সজাগ দৃষ্টি রাখছি এবং আমরা বিয়টি উর্ধতন নেতৃবৃন্দদের অবহিত করেছি । 

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here

Pages