কুষ্টিয়ায় বাসা ভাড়া না দেয়ার অভিযোগে আগুনে পোড়ানো সেই নারীর মৃত্যু - adsangbad.com

সর্বশেষ


Sunday, May 10, 2020

কুষ্টিয়ায় বাসা ভাড়া না দেয়ার অভিযোগে আগুনে পোড়ানো সেই নারীর মৃত্যু

অগ্নিদগ্ধ নারীর ছবির ইনসেটে, আগুন দেয়া ঘাতক রনি।
অনলান ডেস্ক :  কুষ্টিয়া শহরের রেনউইক কমলাপুর এলাকায় বাড়ির মালিকের ছেলের দেওয়া আগুনে অগ্নিদগ্ধ গর্ভবতী জুলেখা খাতুন আর নেই!
মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে শেষ নিস্বাস ত্যাগ করে চলেগেলেন না ফেরার দেশে গৃহবধু জুলেখা।  করোনায় লকডাউন হওয়ায়া বাসা ভাড়া না দিতে পেরে জীবন দিতে হলো জুলেখা নামের এক গৃহবধু কে।গত ৩০ এপ্রিল) বৃহস্পতিবার কুষ্টিয়া শহরের কমলাপুরে বাসা ভাড়া দিতে না পারায় এক নারীর গায়ে আগুন দেয় একই এলাকার বাড়িওয়ালা সাবেক সেনা সদস্য বজলুল হকের ঘাতক ছেলে রনি। এরপর ওই গৃহবধুর আত্মচিৎকারে এলাকার লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে   কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে তার চিকিৎসার এক পর্যায়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে গতকাল শুক্রবার বেলা ১২টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।
নিহত গর্ভবতী নারী জুলেখার গর্ভে ফুটফুটে ৯ মাসের সন্তান কয়েকদিন আগে মৃত বাচ্চা প্রস্রব করেনে। নিহত জুলেখা কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার বহলবাড়ীয়া ইউনিয়নের সাহেবনগর এলাকার মেহেদী হাসানের স্ত্রী বলে জানা গেছে। এদিকে কুষ্টিয়া মডেল থানার (ওসি) গোলাম মোস্তফা এঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,বেলা ১২টার দিকে জুলেখা খাতুন নামে ওই নারীর মৃত্যু হয়েছে। নিহত ওই নারীর মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে গ্রেরন করা হয়।
 এঘটনায় গত (৩০ এপ্রিল) ওই দিনই অভিযুক্ত বাড়িওয়ালার ছেলে রনিকে পুলিশ আটক করেছে । উল্লেখ্য,ঘটনার দিন বাসা ভাড়া দিতে না পারায় জুলেখার শরীরে পেট্রোল ঢেলে আগুন দেয় বাড়িওয়ালা বজলুল হকের ছেলে রনি। 
কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসার অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়ে ছিল। পরে জুলেখা কে ঢাকা থেকে গত বৃহস্পতিবার  রাতে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হলে গতকাল বেলা ১২টায় তার মৃত্যু হয়।

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here

Pages