আশুলিয়ায় সংখ্যালঘু যুবকের হাত পায়ের রগ কাটলো শীর্ষ সন্ত্রাসী মিরাজ গং - adsangbad.com

সর্বশেষ


Wednesday, April 8, 2020

আশুলিয়ায় সংখ্যালঘু যুবকের হাত পায়ের রগ কাটলো শীর্ষ সন্ত্রাসী মিরাজ গং


 আশুলিয়া প্রতিনিধি : আশুলিযার জামগড়া সিকদার মোড় আক্কাস মন্ডলের বাড়ির ভাড়াটিয়ায শ্রী তিতাস, আর্চায্য, পিতা শ্রী গৌরি দাশ আচার্য্যি

কে  গত  ৫ এপ্রিল সকাল ১০টার দিকে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে দলবদ্ধ ভাবে এসে  এলাপাতাড়ী কুপিয়ে হাত পায়ের রগ কেটে দিয়ে পালিয়ে যায় একদল সন্ত্রাসী বাহিনী  ।

পরে ওই যুবকের ডাক চিৎকার শুনে এলাকাবাসী এসে তাকে উদ্ধার করে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তির জন্য চেষ্টা করলে তাকে ভর্তি না নেয়ায় ঢাকার হৃদরোগ হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা ও সেলাই করে বাসায় নিয়ে আসা হয়।

 এঘটনায় ছিনতাইকারী মাদক ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসী মিরাজ এর হুমকির ভয়ে যুবকের বাবা থানায় অভিযোগ দিতে ভয় পাচ্ছে।

 এঘটনার পর এলাকায় জুড়ে আতঙ্ক বিরাজ করছে। 

 এলাকা  সুত্র জানাযায় ঐ যুবকের কাছে থাকা একটি মোবাইল ফোন ছিনতাই করে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে সে সময় বাধা প্রদান করলে এই ঘটনা ঘটে । জীবন জমিদার , মুন্না. মিরাজ, সাফায়াত সহ-৫/৬ জন এসময় নেত্রীত্ব দেন  ।

 তাদের বিরুদ্ধে এলাকায় ছিনতাই ডাকাতি মাদক ব্যবসা মাদক সেবনসহ সন্ত্রাসী কার্যকলাপের অভিযোগ রয়েছে । তাদের বিরুদ্ধে রয়েছে একাধিক মামলা । এরা চিত্রশাইল,বেরণ ও জামগড়া এলাকায় নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িত।

 এলাকায় পোশাক শ্রমিকদের টার্গেট করে এরা সন্ধ্যার পর তাদের মালামাল ছিনতাই করে করেন  মাসের প্রথম সাপ্তাহ এদের তৎপরতা বৃদ্ধি পায়।

কারন ঐ সময় পোশাক শ্রমিকরা বেতন পায় আর সেই বেতন লুট করতে দলবদ্ধ ভাবে এরা ছিনতাই করেন।এদের এলাকায় টিম ঘটন করে ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটায়।

এদের গডফাদার হিসেবে রয়েছেন রাজকুমার রাজু নামে এক ব্যক্তি ।কেউ সমস্যায় পরলে গডফাদার তাদের উদ্ধার করেন। 

এব্যপারে গৌরি দাশ বলেন তার ছেলেকে যারা হত্যা করার জন্য হাত পায়ের রগ কেটেছে তারা একটি সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসী চক্র তাদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দেওয়ার প্রস্তুতি চলছে ।

 এলাকার ভুক্তভুগি জনসাধারনের দাবী এরা নিজেদের অবস্থান ঠিক রাখতে অপরাধ করে দিচ্ছেন অন্যের নাম তারা হারুন মীর নামে একজন ভালো ছেলে কে ফ্যসানোর জন্যে সংবাদকর্মীদের কে বলে একটি নিউজ পোর্টালে তার নাম দিয়ে সংবাদটি প্রকাশ করেছে । যাহা সত্য নহে  বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে  আইন প্রয়োগকারী সংস্থার অতি দ্রুত এধরনের সন্ত্রাসীদের আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তি জোর দাবি জানাচ্ছি ।

 যদি দ্রুত তাদের আইনের আওতায় না নেয়া হয় তাহলে এই এলাকার আইনশৃঙ্খলার চরম অবনতী হবে বলেও জানিয়েছেন তারা ।

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here

Pages