বিশিষ্ট শিল্পপতি আলহাজ্ব রহিম উদ্দিন ভরসার ইন্তেকাল - adsangbad.com

সর্বশেষ

Thursday, March 12, 2020

বিশিষ্ট শিল্পপতি আলহাজ্ব রহিম উদ্দিন ভরসার ইন্তেকাল


রংপুর প্রতিনিধি: ভরসা গ্রুপ অব ইন্ড্রাস্টিজ এর চেয়ারম্যান ও সাবেক সংসদ সদস্য বিশিষ্ট শিল্পপতি আলহাজ্ব রহিম উদ্দিন ভরসার মৃত্যুতে রংপুরে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। সত্তর দশকের সাবেক এই সংসদ সদস্যের মৃত্যুতে রাজনৈতিক, সামাজিক, পেশাজীবী, ব্যবসায়ী ও সুধি সমাজ শোকাহত। শোকে কাতর রহিম উদ্দিন ভরসার প্রতিষ্ঠিত পনেরোর অধিক প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরাও।

শুধু নামে নয়, কাজেও যে তিনি ভরসা ছিলেন। তার মুত্যুতে তা বুঝতে পারছেন রংপুরবাসী। এ অঞ্চলের অসংখ্য গরীব-দুঃখী, কর্মহীন মানুষের ভরসাস্থল ছিলেন সহজ সরল মনের অধিকারী রহিম উদ্দিন ভরসা।

তার প্রতিষ্ঠিত ১৫টিরও বেশি প্রতিষ্ঠানে কাজ করছেন হারাগাছ, কাউনিয়া, রংপুরসহ বিভিন্ন এলাকার লক্ষাধিক মানুষ। তাদের দীর্ঘদিনের জীবন জীবিকা নির্বাহে আস্থার সম্পর্ক রহিম উদ্দিন ভরসা।

এক সময়ের মঙ্গাপীড়িত রংপুরের কাউনিয়া, পীরগাছাসহ বিভিন্ন এলাকায় ব্যক্তি উদ্যোগে তিনি অসংখ্য স্কুল, কলেজ, মাদরাসা ও এতিমখানা স্থাপন করেছেন। তার মন নিবেদিত ছিল গরীব দুঃখীদের জন্য। তার কাছ থেকে কেউ কখনো খালি হাতে ফিরতেন না। বিশেষ করে অসহায় ও দুঃস্থদের মাঝে অকাতরে দান-খয়রাত করতেন। যেন দানবীর হিসেবে তিনি এ অঞ্চলে অদ্বিতীয় ছিলেন।

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের শাসনামলে ১৯৭৯ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিলুপ্ত রংপুর-১০ (বর্তমান রংপুর-৪) আসন থেকে তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। নির্বাচনের আগে থেকেই তিনি সাধারণ মানুষের কাছে বেশ জনপ্রিয় ছিলেন। বিশেষ করে তার সহজ সরল ও নমনীয় আচরণ, আঞ্চলিক কথাবার্তা মানুষকে আকৃষ্ট করেছিল। সাধারণ মানুষজনকে বুকে টেনে জড়িয়ে ধরার প্রবণতা ছিল তার মধ্যে।

রহিম উদ্দিন ভরসার মৃত্যুতে শোকাহত তার প্রতিষ্ঠিত রংপুরের স্থানীয় সংবাদপত্র ‘দৈনিক যুগের আলো’ পরিবারও। প্রিয় মানুষটিকে চিরদিনের মতো হারানোর খবরে সবার চোখ অশ্রুসিক্ত।

দৈনিক যুগের আলোর বার্তা সম্পাদক আবু তালেব কাঁদতে কাঁদতে বললেন, তার মৃত্যুতে একজন পরম অভিভাবককে আমরা হারালাম। এই শুন্যতা পূরণ হবার নয়।

এদিকে রহিম উদ্দিন ভরসার ছেলে কাউনিয়া উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি এমদাদুল হক ভরসা বলেন, আমার বাবাকে এতো মানুষ ভালোবাসে, আজ তা আবার অনুভব করছি। তার মৃত্যুর সংবাদে বিভিন্ন স্থান থেকে ফোন আসছে। দলে দলে লোকজন বাসায় আসছে। চারপাশ থেকে কান্নার শব্দ কানে আসছে। আমার বাবার জন্য সবাই দোয়া করবেন।

আজ বুধবার (১১ মার্চ) দুপুর দেড়টার দিকে ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে রহিম উদ্দিন ভরসা ইন্তেকাল করেন। তিনি এক বছরেরও বেশি সময় ধরে শ্বাসকষ্টজনিত রোগে ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৬ বছর। তিনি ৫ ছেলে ও ৯ মেয়ে সন্তান, নাতি-নাতনিসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

রহিম উদ্দিন ভরসা ১৯৩৫ সালে রংপুর জেলার কাউনিয়া উপজেলার হারাগাছে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি মৃত মনের উদ্দিন পাইকারের রড় ছেলে। ২০০১ সালে অষ্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিজ ছোট ভাই জাতীয় পার্টির করিম উদ্দিন ভরসার কাছে ও ২০০৮ সালে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী শিল্পপতি টিপু মুনশির কাছে রংপুর-৪ আসনের নির্বাচন করে পরাজিত হন।

তিনি পিপলস ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের একজন পরিচালক ছিলেন। এছাড়াও রংপুর চেম্বারের প্রেসিডেন্টসহ বিভিন্ন সংগঠনের সঙ্গে জড়িত ছিলেন। বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও জেলা বিএনপি’র সভাপতি ছিলেন।

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here

Pages